{ভারতের} নাগরিকত্বের জন্য অনলাইনে কিভাবে আবেদন করবেন

how-to-apply-for-Indian-citizenship
how-to-apply-for-Indian-citizenship

NRC ও CAB নিয়ে সারাদেশ এখুন উত্তাল। এই নিয়ে রাজনৈতিক টানাপোড়েন শুরু হয়ে গেছে। আসামে নিজেদের নাগরিকত্বের প্রমান না দিতে পাড়ায় ১৯লক্ষ মানুষ হতাশায় দিন কাটাছে। সম্প্রতি নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল এ (ক্যাব) কিছু নিযম পরিবর্তন করা হয়েছে। যেটা লোকসভা ও রাজ্যসভায় নতুন আইন হিসাবে পাস্ হয়েছে। কিভাবে ভারতের নাগরিক হওয়া যাবে সেটা জানার জন্য পোস্টটি পুরো পড়ুন। এতে সঠিক ভাবে বলা হয়েছে আপনাকে ঠিক কি কি করতে হবে।

Contents

ভারতের নাগরিকত্ব কিভাবে নির্ধারিত হয়?

ভারতের নাগরিকত্ব পেতে গেলে আপনাকে ভারতে জন্ম গ্রহন বা বংশপরম্পরায় থাকতে হবে। প্রথমে ১৯৪৯ সালের ২৯ নভেম্বর সংবিধানে বলা হয় আপনার বাবা ও মা যদি ভারতে জন্মগ্রহণ করে তবেই আপনি ভারতের নাগরিকত্ব পাবেন। এরপর ১৯৫৫ সালের নাগরিকত্ব আইন অনুযায়ী,১৯৫০ সালের  ২৬ জানুয়ারী থেকে ১৯৮৭ সালের ১ জুলাই র  মধ্যে যাদের জন্ম ভারতেই হয়েছে তারা নাগরিকত্ব পেতে পারেন। এতে আরো বলা হয় ১৯৮৭ সালের ১লা জুলাই থেকে ২০০৩ অবধি যাদের জন্ম নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন র আগে তারাই ভারতের নাগরিকত্ব পাবেন।আরো জানতে এই ওয়েবসাইটি ভিজিট করুন।

কীভাবে ভারতীয় নাগরিক হবেন:

PART A:সঠিক ফর্মটি আবেদন এর জন্য নির্বাচন করুন।

১.ভারতীয় বংশোদ্ভূত হলে ফর্ম -১ ব্যবহার করুন।

  • আপনি যদি ৭ বছরের বেশি ভারতে বসবাস করেন তাহলে আপনি ধারা 5 (1) (ক) ব্যবহার করবেন। আর আপনি যদি ভারতের বাইরে থাকেন তবে আপনাকে  ধারা 5 (1) (খ) [1] ব্যবহার করতে হবে।
  • ১৫ আগস্ট এর পরে ভারতে জন্ম গ্রহন করেছিলেন এমন ব্যক্তি, এমন একটি অঞ্চল যা ভারতের অংশ হয়ে গেছে বা যদি তার পিতা বা মাতা থাকে ভারতেই তিনি এই যোগ্যতা পাবেন।

২.বিয়ের মাধ্যমে নাগরিকত্ব পেতে চাইলে ফর্ম -২ ব্যবহার করুন।

অন্য ভাবে ভারতের নাগরিক হতে গেলে বৈধভাবে কোনও ভারতীয় নাগরিকের সাথে বিবাহিত এটা প্রমান করতে হবে। এটাতে আপনাকে অবশ্যই ভারতে 7 বছর ধরে বসবাস করতে হবে। আপনি বিভাগ 5 (1) (গ) ব্যবহার করবেন।

৩.আপনি যদি ভারতীয় বাবা-মায়ের সন্তান হন তবে ফর্ম -৩ পূরণ করুন।

এই ফর্মটি র মাধ্যমে আবেদন করতে আপনার পিতামাতাকে নাগরিক হিসাবে নিবন্ধিত হতে হবে অথার্ৎ ভোটারলিস্টে নাম থাকতে হবে। নাবালিকা বা প্রাপ্তবয়স্কদের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য এই ফর্মটি।
  • নাগরিকত্বের জন্য আবেদনকারী অপ্রাপ্তবয়স্ক পিতামাতাদের ধারা 5 (1) (d) এর অধীনে ফর্ম -3 ব্যবহার করতে হবে।
  • আপনার বাবা-মা 5 (1) (ক) বা 6 (1) এর অধীনে নাগরিক হিসাবে নিবন্ধিত হন তবে আপনাকে ধারা 5 (1) (ই) এর অধীনে ফর্ম-II-A ব্যবহার করতে হবে।
  • আপনার পিতামাতা যদি স্বতন্ত্র ভারতের পূর্ববর্তী বাসিন্দা ছিলেন তাহলে আপনি ফর্ম-III-B ব্যবহার করবেন এবং ধারা 5 (1) (চ) এর অধীন ফাইল করবেন।

৪.প্রাকৃতিককরণের জন্য ফর্ম-দ্বাদশ সহ আবেদন করুন।

আপনি যদি কমপক্ষে 12 বছর ধরে ভারতে থাকেন তবে প্রাকৃতিকীকরণের দ্বারা আপনি ভারতীয় নাগরিক হয়ে উঠতে পারেন। এই জন্য আপনাকে বিভাগ 6 এর অধীনে আবেদন করতে হবে।
  • আপনাকে প্রমান দিতে হবে আপনি অবৈধভাবে ভারতে বসবাস করছেন না।
  • আপনি যদি  বিশেষ সাক্ষাত্, মেলা, দর্শন বা পরামর্শের মতো গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে পারেন তাহলে আপনি এই ফর্মটি ব্যবহার করুন।

PART B :নাগরিকত্বের জন্য আবেদন করা {Registration As a Citizen of India Under Section 5(1)(a) } :

১.অনলাইনে আবেদনটি সন্ধান করুন।

  • অনলাইনে আবেদন করার সহজ উপায় হলো ফরেনার্স বিভাগ, ভারত সরকারের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক দ্বারা চালানো https://indiancitizenshiponline.nic.in/  এই ওয়েবসাইটি তে ক্লিক করুন।
  • আপনি যদি অনলাইনে আবেদন না করতে চান তাহলে ফর্মটি ডাউনলোড করে তা পূর্ণ করুন এবং আপনার আবেদনটি কালেক্টর / জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে জমা দিন।

২.উপযুক্ত বিভাগ চয়ন করুন।

এরপর আপনি উপযুক্ত বিভাগ চয়ন করুন অর্থাৎ যাতে আপনি রেজিস্ট্রেশন করতে চান সেটি নির্বাচন করুন।

৩.Apply Online এ ক্লিক করুন।

যে বিভাগে রেজিস্ট্রেশন করতে চান সেটি নির্বাচন করে ক্লিক করুন।

৪.নিবন্ধকরণের মাধ্যমে নাগরিকত্বের জন্য আপনার ডকুমেন্টেশন সংগ্রহ করুন।

এরপর যে পেজ টি খুলবে সেটিতে আপনার পুরো তথ্য,বাবা ও মার তথ্য,পাসপোর্ট তথ্য,আপনার বিবাহিত জীবন ও কাজের তথ্য পূরণ করতে হবে। এরপর (save and next) এ ক্লিক করতে হবে।

৫. আপনার সঠিক address প্রদান করুন।

এবার আপনার সঠিক ঠিকানা,যে জায়গার আপনি বাস করেন তার রেসিডেনসিয়াল দিতে হবে। এরপর আপনাকে আপনার পরিবারের ও এক ই তথ্য দিতে হবে এবং আপনি কোনো প্রকার ফৌজদারি মামলার সাথে যুক্ত কিনা তার প্রমান দিতে হবে।

৬.কম্পিউটারে আপনার কাগজপত্র স্ক্যান করুন।

আপনি যখন অনলাইনে আবেদন করেন তাহলে আপনার ডকুমেন্টগুলি ইতিমধ্যে স্ক্যান করা দরকার। ফাইলগুলি মেগাবাইট এ করে ডকুমেন্টগুলি স্ক্যান করে নিন।

৭.পাসপোর্ট-আকারের ছবি আপলোড করুন।

এবার পাসপোর্ট-আকারের ছবি আপলোড করুন।আপনার ছবিটি 100 পিক্সেল দ্বারা 100 পিক্সেল হতে হবে। এই ছবি টি jpg ফরমাট এ থাকতে হবে এবং সাইজ 20 কিলোবাইটেরও কম হতে হবে।

৮.ফি দিতে হবে।

নাগরিকত্ব আইনের অধীনে পুরো কাজটি পূর্ণ করতে ফি দিতে হবে।আপনার প্রয়োজন হবে ব্যাংক চালান যা অর্থ প্রদানের সরকারী প্রাপ্তি হিসাবে প্রমান দেবে। যেটি আপনি ব্যাঙ্ক ওয়েবসাইট এ ডাউনলোড করতে পারেন।

৯.অনুমোদনের জন্য অপেক্ষা করুন।

আপনি যোগ্য কিনা তা নির্ধারণ করবে সরকার।আপনি যদি গ্রহণ যোগ্য হন তাহলে ১মাসের মধ্যে জানতে পারবেন। আর কিছু ভুল থাকলে তাও ঠিক করার সুযোগ দেবে।

এখন ভারতের নাগরিকত্ব কারা পাবে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল (CAB) অনুযায়ী :

নতুন নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল (CAB) অনুযায়ী ভারতের প্রতিবেশী মুসলিম দেশ পাকিস্তান,আফগানিস্তান ও বাংলাদেশের  শিখ, বৌদ্ধ, জৈন, পারসি,হিন্দু ও খ্রিস্টানদের নাগরিকত্ব দেয়া হবে।তবে অন্যান্য ধর্মের মানুষেরাও আবেদন করতে পারবে।

আগের নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনে বলা হয়েছিল ১২ বছর ভারতে থাকলেই আবেদন করতে পারবে। কিন্তু নতুন আইনে আপনাকে ধর্মীয় কারণে প্রতারিত হয়ে এদেশে এসেছেন তার প্রমান দিতে হবে। নতুন আইনে ১২ বছরকে কমিয়ে ৬ বছর করা হয়েছে অর্থাৎ টানা ৬ বছর ভারতে থাকলেই আবেদন করতে পারেন আপনি।

কি  কি প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট থাকতে হবে :

ভারত সরকারের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক দ্বারা চালানো https://indiancitizenshiponline.nic.in/ ওয়েবসাইটে আবেদনের জন্য আপনার বিদেশী পাসপোর্ট,মা ও বাবার জন্ম তারিখ,আবাসিক কাগজের অনুমতি প্রয়োজন।

Leave a Comment